cosmetics-ad

যুদ্ধের প্রথম ঘণ্টাতেই প্রাণ যাবে লাখো সিউলবাসীর

trump-kim

উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সংঘাত বেঁধে গেলে লড়াইয়ের প্রথম ঘণ্টাতেই উত্তর কোরিয়ার হামলায় কয়েক লাখ দক্ষিণ কোরীয় নাগরিক প্রাণ হারাতে পারেন বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। এ ব্যাপারে পরমাণু বিস্তার বিরোধী আন্তর্জাতিক সংগঠন প্লাউশেয়ার ফান্ড এর প্রধান জো কিরিনেকোয়েন সিএনএনকে বলেন, উত্তর কোরিয়ায় হামলা চালানো প্রশ্ন নয়, প্রশ্ন হলো হামলার পর কি হবে।

তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়া আক্রমণের শিকার হলে, দেশটি তাদের কাছে থাকা বিপুল পরিমাণ প্রচলিত রণসম্ভার নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার উপর ঝাঁপিয়ে পড়বে। এক্ষত্রে উত্তর কোরিয়ার দূরপাল্লার কামানের আওতার মধ্যে আছে স্বয়ং দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলও। তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, যুদ্ধের প্রথম ঘণ্টাতেই উত্তর কোরিয়ার কামানের গোলা বর্ষণ ও স্বল্প পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় প্রাণ হারাবেন কয়েক লাখ সিউলবাসী। পাশাপাশি যদি এই লড়াই পরমাণু যুদ্ধে গড়ায় তবে এর ভয়াবহতা হবে অকল্পনীয়। তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, এর ফলে দক্ষিণ কোরিয়ার কমপক্ষে ১ কোটি নাগরিক তাৎক্ষণিকভাবে হতাহত হবেন।

উল্লেখ্য, ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে গত বেশ কিছুদিন ধরেই উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে পাল্টাপাল্টি হুমকি দেয়ার ঘটনা ঘটছে। উত্তর কোরিয়া সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের প্রশান্ত মহাসাগরীয় গুয়াম দ্বীপ সহ দেশটির মূল ভূখণ্ডে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর হুমকি দিয়েছে। জবাবে শুক্রবার এক টুইট বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ায় সামরিক অভিযান চালানোর হুমকি দিয়েছেন। তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়া অযৌক্তিক আচরণ অব্যাহত রাখলে, যুক্তরাষ্ট্রের জন্য সামরিক পন্থা গ্রহণের রাস্তা খোলা রয়েছে। এবং এজন্য যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী সম্পূর্ণ প্রস্তুত। সৌজন্যে: বাংলানিউজ