cosmetics-ad

বন্যার্তদের জন্য সাহায্য চেয়ে মুশফিকের ভিডিও বার্তা

musfiqur-rahim
ফাইল ছবি

ভয়াবহ বন্যার কবলে পুরো উত্তরবঙ্গের মানুষ। একের পর এক এলাকা প্লাবিত হচ্ছে বন্যার পানিতে। বন্যার কারণে লক্ষ লক্ষ মানুষ এখন মানবেতর জীবন যাপন করছেন। খাবার নেই, পান করার মত পানি নেই, মাথার গোঁজার এক টুকরো জায়গা নেই। বুক সমান পানির মধ্যে দাঁড়িয়ে থেকে অনেককে রাত পার করতে হচ্ছে। মারাও যাচ্ছে শিশু, বৃদ্ধসহ অনেক মানুষ। বলা হচ্ছে ১৯৮৮ সালের চেয়েও ভয়াবহ এবারের বন্যা পরিস্থিতি।

বন্যার্ত মানুষের এমন কষ্টের খবর বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকেও ছুঁয়ে গেছে। তাই আজ তার ফেইসবুক পেইজে এক ভিডিও পোস্টে তিনি সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে।

আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নিজের ফেসবুক পেজে লাইভে এসে ভক্ত-সমর্থক, সর্বোপরি পুরো দেশবাসির প্রতি বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।

প্রায় ৮০ সেকেন্ডের এই ভিডিও বার্তায় মুশফিক জানান, তিনি বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর প্রতিজ্ঞা করেছেন। একই সঙ্গে সবাইকে অনুরোধ করেছেন যার যা সামর্থ্য তা নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। যাদের আর্থিক কিংবা ত্রাণ সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসার সামর্থ্য নেই, তারা যেন অন্তত আল্লাহর কাছে দোয়া করেন, অসহায় মানুষগুলোর দুর্দশার যেন খুব তাড়াতাড়ি অবসান হয়।

ফেসবুক লাইভে এসে মুশফিক যা বললেন… ‘আসসালামু আলাইকুম। অনেক কষ্ট, আশা এবং অনুরোধ নিয়ে আপনাদের সামনে আমি এসেছি। আপনারা সবাই অবগত আছেন যে, বাংলাদেশে এখন বন্যার কতটা ভয়াবহ অবস্থা। আমি তাদের পাশে দাঁড়ানোর প্রতিজ্ঞা নিয়েছি। এবং আমি অনুরোধ করবো আপনাদেরকে, যারা অনেকেই হয়তো বা সাহায্য করেছেন এবং আরো সাহায্য প্রয়োজন। আপনারা আর্থিকভাবে কিংবা ত্রাণ সহায়তা দিয়ে, যেভাবেই হোক তাদের পাশে এসে দাঁড়ান। বিশেষ করে আমাদের উত্তর বঙ্গের মানুষজন, দিনাজপুর-ঠাকুরগাঁও মানুষজনের অবস্থা অনেক অনেক খারাপ। আমি অবশ্যই আপনাদের কাছে অনেক অনুরোধ জানাচ্ছি, ত্রাণ বা আর্থিক সহায়তা দিয়ে সাহায্য করতে না পারলেও, অন্তত আল্লাহর কাছে দোয়া করবেন, যাতে তাদের ভয়াবহ দুর্দশার তাড়াতাড়ি অবসান ঘটে এবং তারা যেন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে। আসুন আমরা সবাই এগিয়ে আসি এবং এই বানবাসি মানুষদের সাহায্য করি। এই অনুরোধটার জন্যই আজ আমি আপনাদের সামনে এসেছি। আশা করি আপনারা আমাদের, বিশেষ করে আমার এই অনুরোধটুকু রাখবেন। আল্লাহ হাফেজ। আসসালামু আলাইকুম।’