cosmetics-ad

গুয়ামে হঠাৎ বেজে উঠল বিপদকালীন সাইরেন

guam

মঙ্গলবার গুয়ামের স্থানীয় সময় দুপুর ১২ টা ১৫ মিনিট। আচমকা বিপদকালীন সতর্কতা জারি হল গুয়ামের দুটি রেডিও স্টেশন থেকে। আগে থেকেই বলা ছিল উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালালে রেডিও, টেলিভিশন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সতর্কবার্তা জানানো হবে; বেজে উঠবে সাইরেন।

দুটি রেডিও থেকে হঠাৎ করেই জানানো হল সতর্কবার্তা, সাইরেনও বেজে উঠল। সতর্ক সাইরেন বেজে ওঠার পরই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গুয়ামবাসীর মধ্যে। মানুষজন ভয়ে দিগ্বিদিক ছুটতে থাকেন। খানিকবাদেই তারা জানতে পারেন, বিপদকালীন সতর্কবার্তা এবং সাইরেন বেজে উঠেছে ভুল করে।

সম্প্রতি গুয়ামে মাঝারি ধরনের চারটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার হুমকি দিয়েছে উত্তর কোরিয়া। জবাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, দেশটি যুক্তরাষ্ট্রকে হুমকি দেয়া বন্ধ না করলে পিয়ংইয়ং এমন ক্রোধ, উন্মত্ততা এবং ক্ষমতার প্রয়োগ দেখবে, যা বিশ্ব আগে কখনো দেখেনি।

তবে গুয়ামবাসীর বিশ্বাস উত্তর কোরিয়া হামলা চালালে যুক্তরাষ্ট্র তাদের বাঁচাবে। ট্রাম্প অবশ্য গুয়ামবাসীকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, অাপনারা আমার উপর আস্থা রাখুন; আপনাদের কিচ্ছু হবে না।

তবে হামলার আশঙ্কায় সতর্ক করে দেয়া হয়েছিল গুয়ামবাসীকে। সাইরেন বাজলে বা গণমাধ্যমে আপৎকালীন বার্তা পেলেই নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যেতে বলা হয়েছিল।

মঙ্গলবার দুপুরে দু’টি রেডিও স্টেশন থেকে বিপদকালীন বার্তা সম্প্রচার হওয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। তবে শেষাবধি তারা হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন এই ভেবে, যাক বাবা হামলা তো হয়নি।

মজার ব্যাপার এদিন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে গুয়াম দ্বীপে হামলার পরিকল্পনার বিষয়ে ব্রিফ করে দেশটির সেনাবাহিনী। কিন্তু তিনি যুক্তরাষ্ট্রের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের পর গুয়ামে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা জানিয়েছেন।

সূত্র : সিএনবিসি, দ্য গার্ডিয়ান