cosmetics-ad

বাংলাদেশের ৫০০তম ম্যাচ

steven-smith-and-mushfiqur

১৯৮৬ সালের ৩১ মার্চ ছিল বাংলাদেশের জন্য এক ঐতিহাসিক দিন। ৩১ বছরেরও বেশি সময় পর আজ, ২০১৭ সালের ২৭ আগস্ট আরও একটি স্মরণীয় দিন বাংলাদেশের। ঐতিহাসিকও বটে। এমনিতেই প্রায় ১১ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট খেলতে নামাটা বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য স্মরণীয়ই বটে।

১৯৮৬ সালের ওই দিনটিতে গাজী আশরাফ হোসেন লিপুর নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নতুন এক দেশ হিসেবে পা রেখেছিল বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার মোরাতুয়ায় এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের পথচলা শুরু। সেই যে শুরু হলো, এরপর নিরন্তর বাংলাদেশ খেলেই চলছে।

এরই মধ্যে আইসিসি ট্রফি থেকে বিশ্বকাপ, এরপর টেস্ট স্ট্যাটাস। এই দুই ফরম্যাটের সঙ্গে ২০০৬ সালে পথচলা শুরু হয় টি-টোয়েন্টিতে। তিন ফরম্যাটে নিয়মিতই হাত ধরাধরি করে এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ। অবশেষে আজ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মুশফিকুর রহীমের টস করার মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৫০০তম ম্যাচ খেলে ফেলেছে টাইগাররা।

১৯৮৬ সালে সেই ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে বাংলাদেশ হেরে গিয়েছিল ৭ উইকেটে। বাংলাদেশ প্রথমে ব্যাট করতে নেমে করেছিল ৯৪ রান। জবাবে ৩ উইকেট হারিয়েই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ। ৫০০তম ম্যাচে এসে বাংলাদেশ জয় পাবে না হেরে যাবে তা জানার জন্য অন্তত আর চারদিন অপেক্ষা করতে হবে দর্শকদের।

তবে এই ম্যাচের আগে বাকি ৪৯৯ ম্যাচের মধ্যে বাংলাদেশ ওয়ানডেতে খেলেছে মোট ৩৩২টি। টেস্ট খেলেছে ১০০টি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে চলতি টেস্ট নিযে ১০১টি। আর টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে মোট ৬৭টি। সর্বমোট ৫০০টি।

এর মধ্যে বাংলাদেশ জিতেছে মোট ১৩৫টিতে। এর মধ্যে ওয়ানডে ম্যাচেই জয় বেশি। ১০৫টি। টেস্ট জিতেছে ৯টি এবং টি-টোয়েন্টি জিতেছে ২১টিতে। সব মিলিয়ে পরাজয় ৩৪০ ম্যাচে। ১৫টি ড্র এবং বাকি ৯ ম্যাচে কোনো ফল হয়নি।

এ পর্যন্ত বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট খেলেছেন মোট ৮৬জন ক্রিকেটার। ওয়ানডে খেলেছেন ১৩৭জন এবং টি-টোয়েন্টি খেলেছেন ১৩৬জন।

ক্রিকেটের তিন ফরম্যাট মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেছে অস্ট্রেলিয়া। মিরপুরে আজ নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে ১৭৯৬তম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নেমেছে সফরকারী দল। ১৭৭৬ ম্যাচ নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ইংল্যান্ড। এরপর যথাক্রমে ভারত (১৫১৬ ম্যাচ), পাকিস্তান (১৪০৩ ম্যাচ), ওয়েস্ট ইন্ডিজ (১৩৭৭ ম্যাচ), নিউজিল্যান্ড (১২৪৭ ম্যাচ), শ্রীলঙ্কা (১১৫৭ ম্যাচ), দক্ষিণ আফ্রিকা (১০৯৩ ম্যাচ) ও জিম্বাবুয়ে (৬৪৭ ম্যাচ)। জিম্বাবুয়ের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যাত্রা শুরু ১৯৮৩ সালে।