cosmetics-ad

দলে তার ভূমিকা কী হওয়া উচিৎ তা জানতে চান মুশফিক

mushfiqur

বার বার চোখে পড়ছে তিন ও চার নম্বরে চরম ব্যাটিং সংকট বাংলাদেশের। ভাবা হয় সবচেয়ে পরিপাটি টেকনিক আর ধৈর্য-সংযমী মুশফিকই হতে পারেন টেস্টে চার নম্বরে বাংলাদেশের সেরা ব্যাটিং অপশন। কিন্তু যেহেতু তিনি অধিনায়ক, ব্যাটসম্যান আবার উইকেটরক্ষকও তাই এতগুলো দায়িত্ব একসঙ্গে পালন করা কঠিন। অনেকেরই মত, মুশফিক কিপিং ছেড়ে পুরোদস্তুর ব্যাটম্যান হিসেবে খেললে তার নিজের পাশাপাশি দল উপকৃত হত। তাহলে মুশফিক চার নম্বরে ব্যাটিং করতে পারতেন।

টেস্টে কিপিং করা মানেই ১০০ থেকে ১২০ /১২৫ ওভার গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনে হুমরি খেয়ে পড়ে থাকা। এতে করে বাড়তি শ্রম, চোখ ও মাথার কাজ হয় অনেক বেশি। সঙ্গে দল পরিচালনা, বোলার ব্যবহার ও ফিল্ডিং সেটিং সব মিলে অনেক বেশি এনার্জি ক্ষয়। কাজেই কিপিং না করে শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেললে মুশফিক এই বাড়তি এনার্জি ক্ষয়ের হাত থেকে বেঁচে যাবেন। তখন চার নম্বরে ব্যাটিং করতে কোনই সমস্যা থাকবে না। আর মুশফিক টেস্টে কিপিং ছেড়ে চার নম্বরে ব্যাট করার অর্থ, সাব্বির, নাসির কিংবা আর কাউকে দিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষারও প্রয়োজন পড়বে না। ঐ গুরুত্বপূর্ণ পজিসনে দল পাবে তার সম্ভাব্য সেরা বিকল্পকে।

প্রশ্ন উঠেছে মুশফিক কেন কিপিং ছেড়ে শুধু ব্যাটিংয়ে মনোযোগী হন না? তাহলে তার নিজের ব্যাটিংটা আরও ভালো হত। দলও বেটার সার্ভিস পেত। আজ খেলা শেষেও উঠল সেই প্রশ্ন, আপনি কী আপনার ভূমিকা বদলাতে চান? জবাবে মুশফিক অনেক কথাই বলেছেন। যার বেশির ভাগ কথা আগেও তার মুখে উচ্চারিত হয়েছে।

তবে এদিন তিনি একটি নতুন কথা বলেছেন। দলে তার ভূমিকা কী হওয়া উচিৎ? তিনি নিজেও চান সেটা যেন টিম ম্যানেজমেন্ট পরিষ্কার করে। মুশফিকের জবাব, ‘এটা তো আসলে আমার ইচ্ছাতে হচ্ছে না। আমি যে শ্রীলঙ্কাতে কিপিং করিনি এটাও আমার ইচ্ছাতে ছিল না। আমার কিপিংয়ে কখনোই আপত্তি ছিল না। আমি বার বার বলেছি এখানে আমি একজন খেলোয়াড় হিসেবে ৪০-৫০ বছর খেলব না, হয়তো ৫-৬ বছর খেলবো। আমি চেষ্টা করি আমার দলের জন্য যতটুকু সম্ভব সেরাটা দেওয়ার। সেখানে অধিনায়কত্ব না থাকলেও আমার কোন সমস্যা নেই। আবার ধরেন কিপিং না থাকলেও সমস্যা নেই। আমি ব্যক্তিগতভাবে অনুভব করি আমি শতভাগ দিতে পারছি কিনা। এখন যদি বলে তোমাকে দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে শতভাগ দিতে হবে তাতেও আমি রাজি। সেটাতে আমার সমস্যা নেই। আমার কথা হচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্ট আমাকে যেভাবে চায়, আমি সেভাবে সাপোর্টটা দেওয়ার চেষ্টা করি।’

মুশফিকও মনে করেন, ‘তাকে শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলানোর বিষয়টাও পরিষ্কার হোক। তিনি চান টিম ম্যানেজমেন্ট তাকে জানিয়ে দেন, দলে তার আসল ভূমিকা কী হওয়া উচিৎ। তাই তো মুখে এমন কথা, আমার মনে হয় উপরে যারা আছেন তাদেরকে এই প্রশ্নটা করা বেটার। সে ক্ষেত্রে আমিও আমার দিক থেকে পরিষ্কার হয়ে যাই। ইনপুটটা আরও ভালোভাবে দিতে পারি।’