cosmetics-ad

অস্ট্রেলিয়ায় গুণীজন সম্মাননা পেলেন বাংলাদেশি আজাদ

austrella-azad

অস্ট্রেলিয়া স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন এন এস ডব্লিউ ভলান্টারি অব দ্য ইয়ারের উদ্যোগে স্বেচ্ছাসেবক কাজ শীর্ষক আলোচনা সভা এবং গুণীজন সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। সিডনি ইনার ওয়েস্ট থেকে ভলান্টিয়ার্স অব দ্য ইয়ার অ্যাওয়ার্ড-২০১৭ সার্টিফিকেট পেয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সাংবাদিক ও সমাজসেবক আবুল কালাম আজাদ খোকন।

সম্প্রতি সিডনির বারউড আর এস এল ক্লাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে এ বছরের বার্ষিক স্বেচ্ছাসেবক পুরস্কারের স্বীকৃতিপ্রাপ্তদের অনুষ্ঠান। প্রতিবছর ভলান্টারিদের অসামান্য অবদানের জন্য স্বীকৃতি সম্মাননা পুরস্কার দেয়া হয়। অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন সেন্টার ফর ভলান্টারির সিইও জিমা রেগেট। এছাড়া মন্ত্রী, এমপি ও কাউন্সিলরাও এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

সেন্টার ফর ভলান্টারির সিইও জিমা রেগেট বলেন, স্বেচ্ছাসেবকরা অস্ট্রেলিয়ায় অর্থনৈতিক ও সামাজিকভাবে বছরে ২৯০ বিলিয়ন ডলার সেভ করে থাকে। স্বেচ্ছাসেবকদের এই কঠোর পরিশ্রম দায়িত্বশীলতার পরিচয় মেলে। অস্ট্রেলিয়ায় এই বছরে সব বিভাগ জুড়ে সম্মাননা দেয়া হয়।

আবুল কালাম আজাদের গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের জালকুড়ীতে। তিনি সিডনি থেকে প্রকাশিত অনলাইন সংবাদমাধ্যম নবধারার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক। বর্তমানে আবুল কালাম আজাদ নিউ সাউথ ওয়েলস স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত। এছাড়াও তিনি হোয়াইট রিবন অস্ট্রেলিয়ার অ্যাম্বাসিডর। মানষিক স্বাস্থ্য পিয়ার এডুকেটর, জাস্টিস অব দ্য পিস পদমর্যাদায় কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

উল্লেখ্য, আবুল কালাম আজাদ এ নিয়ে পাঁচবার এন এস ডব্লিউ ভলান্টারি অব দ্য ইয়ার অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হন। সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ৫০টিরও বেশি সম্মাননা ও পুরস্কার পেয়েছেন আবুল কালাম আজাদ। এছাড়া অস্ট্রেলিয়ান অব দ্য ইয়ার অ্যাওয়ার্ড সার্টিফিকেট, সিটিজেন অব দ্য ইয়ার সার্টিফিকেট, হারমনি ডে অ্যাওয়ার্ড, স্টার অ্যাওয়ার্ড, কমিউনিটি অ্যাওয়ার্ড, পার্লামেন্ট অ্যাওয়ার্ড পুরস্কারসহ বহু পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তিনি।