sentbe-top

দিল্লিকে হারিয়ে আবারও পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে ধোনির চেন্নাই

chennai-v-delhiদিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে ১৩ রানে হারিয়ে আবারও পয়েন্ট তালিকায় এক নম্বরে উঠে এল চেন্নাই সুপার কিংস। চেন্নাইর করা ২১২ রান তাড়া করতে নেমে ৫ উইকেটে ১৯৮ রানে থেমে যায় দিল্লির ডেভিলসরা। এই ম্যাচে অধিনায়ক আইয়ারের ব্যাট হাসতে পারেনি। তবে রিশাভ পান্তের দুরন্ত লড়াইয়েও কাঙ্খিত লক্ষ্যের কাছাকাছি গিয়েও তীর ছুঁতে পারলো না দিল্লি।

আগের ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের কাছে হেরে লিগ টেবিলের এক নম্বর জায়গাটা হারিয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস। ঘরের মাঠে ‘ডেভিলস বধ’ করে ফের শীর্ষে উঠে এল সিএসকে। ৮ ম্যাচ শেষে ১২ পয়েন্ট নিয়ে রান রেটের ব্যবধানে শীর্ষে এখন চেন্নাই। সমান ম্যাচে, সমান পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। নতুন নেতার হাত ধরে আগের ম্যাচে নাইটদের হারিয়ে ডেভিলসদের পুর্নজন্ম হলেও এদিন ধোনি-ওয়াটসন ধামাকার কাছে হার মানতে বাধ্য হল আয়ার অ্যান্ড কোং।

জয়ের জন্য ২১২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৭৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে চলে যায় দিল্লি। পৃত্থি শ, কলিন মুনরো, স্রেয়াশ আইয়াররা দাঁড়াতেই পারেননি। টানা তিন ম্যাচে পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলা আইয়ার আউট হয়ে গেলেন মাত্র ১৩ রান করে। কলিন মুনরো করেন ২৬ রান। পৃত্থি শ ৯ রান। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল আউট হয়ে যান মাত্র ৯ রান করে।

তবে সেখান থেকে অবিশ্বাস্য ব্যাটিং করে দিল্লিকে লড়াইয়ে রাখেন রিশাভ পান্ত ও বিজয় শঙ্কর; কিন্তু ৭৯ রানে পান্ত ডাগ-আউটে ফেরার সঙ্গে সঙ্গে দিল্লির আশা শেষ হয়ে যায়। ৫৪ বলে ৭ বাউন্ডারি এবং ৪ ছক্কায় এই ইনিংস সাজান তিনি। তাকে যোগ্য সঙ্গত দেন বিজয় শঙ্কর। শেষ পর্যন্ত ৩১ বলে ৫৪ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। এই হারের ফলে ৮ ম্যাচ মাত্র ৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে আবারও একেবারে তলানীতে নেমে গেলো দিল্লি।

সোমবার টস জিতে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে প্রথমে ফিল্ডিং নেয় দিল্লি। শুরু থেকেই দিল্লি বোলারদের বিরুদ্ধে দাপট দেখাতে শুরু করেন সুপার কিংস ব্যাটসম্যানরা। ওয়াটসন ও ধোনির ঝড়ো ব্যাটিংয়ে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের সামনে ২১২ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় চেন্নাই। ওয়াটসন ও ফ্যাফ ডু’প্লেসি ওপেনিং জুটিতে ১০২ রান করলে বড় রানের ভিত পেয়ে যায় ধোনির দল।

সেই ভিতের ওপর দাঁড়িয়ে রানের ইমারত তৈরি করলেন ক্যাপ্টেন ধোনি নিজে। মাত্র ২২ বলে ৫টি ছক্কা ও দু’টি বাউন্ডারি মেরে ৫১ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। ২৪ বলে ৪১ রানের ইনিংস খেলে রান-আউট হন রাইডু।

তার আগে ডেভিলস বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা করেন ওয়াটসন। ৪০ বলে ৭ ছক্কা ও চারটি বাউন্ডারিতে ৭৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলন সাবেক অসি অল-রাউন্ডার। কিছুটা রক্ষণাত্মক ইনিংস ডু’প্লেসির। ৩৩ বলে ৩৩ রান করেন প্রোটিয়া ক্যাপ্টেন। ডেভিলস বোলারদের মধ্যে লিয়াম প্লাঙ্কেটের উপর বেশি নির্মম ছিলেন সুপার কিংস ব্যাটসম্যানরা। ৩ ওভারে প্লাঙ্কেটের কাছ থেকে ৫২ রান নেন ওয়াটসন-ধোনিরা।

sentbe-top