কেন ইফতারে ছোলা খাওয়া হয়?

Solaইফতারে আর যা কিছুই থাকুক না কেন ছোলা ও খেজুর কিন্তু থাকবেই। রমজান মাসজুড়েই ইফতারে সবাই কমবেশি ছোলা খেয়ে থাকেন। কখনো কি ভেবে দেখেছেন, কেন ইফতারে ছোলা খাওয়া হয়। আর ছোলার পুষ্টিগুণই বা কি।

জেনে রাখা ভালো ছোলায় রয়েছে নানা ধরনের পুষ্টিগুণ, যা আপনার শরীরে শক্তি বৃদ্ধিতে আমিষের কাজ করে।

আসুন জেনে নেই কেন ইফতারে ছোলা খাবেন।

ছোলার পুষ্টিগুণ

ছোলায় রয়েছে নানা পুষ্টিগুণ। প্রতিদিন সামান্য পরিমাণে (প্রায় ৫০ গ্রাম) ছোলা খেলে মাছ-মাংসের ঘাটতি পূরণ হয়। আপনি জেনে অবাক হবেন যে, ছোলায় আমিষের পরিমাণ গোশত, মাছ বা ডিমের আমিষের পরিমাণের প্রায় সমান।

ছোলার উপকারিতা

অস্থির ভাব

ছোলার শর্করার গ্লাইসেমিক ইনডেক্সের পরিমাণ কম, যা শরীরে প্রবেশ করলে অস্থির ভাব দূর হয়। ছোলা খাওয়ার পর বেশ অল্প সময়েই হজম হয়।

ডায়াবেটিকস

ছোলা শর্করা গ্লুকোজ হয়ে দ্রুত রক্তে চলে যায় না। ছোলা ডায়াবেটিকস রোগীর জন্য খুবই উপকারী খাবার। ছোলার ফ্যাটের বেশিরভাগই পলি আনস্যাচুয়েটেড ফ্যাট, যা শরীরের জন্য মোটেই ক্ষতিকর নয়।

কোষ্ঠকাঠিন্য

ছোলায় খাদ্য-আঁশও আছে বেশ। এ আঁশ কোষ্ঠকাঠিন্যে উপকারী। খাবারের আঁশ হজম হয় না। এভাবেই খাদ্যনালি অতিক্রম করতে থাকে। এতে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়। ফলে খাদ্যনালির ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা কমে।

চর্বি কমায়

নিয়মিত ছোলা খেলে আর নিয়মমতো পায়খানা হলে খাদ্যনালিতে ক্ষতিকর জীবাণু থাকতে পারে না। ফলে খাদ্যনালির ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা থাকে না বলা যায়। এর আঁশ রক্তের চর্বি কমায়। ছোলা দীর্ঘক্ষণ ধরে শক্তির জোগান দেয় শরীরে।

রমজানে ইফতারে বেশি বেশি করে ছোলা খেয়ে নিজের শরীরকে সতেজ ও সুস্থ রাখুন।