sentbe-top

তেল রফতানি করবে যুক্তরাষ্ট্র

২৬ জুন ২০১৪: 

পাথুরে খনির কঠিন আস্তরণ ভেদ করে তেল উত্তোলনের ফলে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে জ্বালানি সরবরাহ যেমন বাড়ছে, তেমনি হচ্ছে উদ্বৃত্ত। নিজেদের চাহিদা পূরণ করে ১৯৭০ সালের পর এই প্রথমবারের মতো দুটি মার্কিন কোম্পানিকে অপরিশোধিত তেল রফতানির অনুমোদন দিতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র— গত মঙ্গলবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমনই তথ্য জানিয়েছে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল। খবর এএফপি।

1381654750_oilবিষয়টির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রের বরাত দিয়ে ওয়াল স্ট্রিট জানায়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় যে দুটি কোম্পানিকে অপরিশোধিত তেল রফতানির অনুমোদন দিতে যাচ্ছে, তারা হলো টেক্সাসভিত্তিক পাইওনিয়ার ন্যাচারাল রিসোর্সেস এবং এন্টারপ্রাইজ প্রডাক্টস পার্টনার্স। কিছু সংক্ষিপ্ত প্রক্রিয়া শেষে আগস্টের প্রথম থেকেই তেল রফতানি শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

স্থানীয় চাহিদা পূরণে তেল আমদানির ওপর অনেকটাই নির্ভরশীল ছিল যুক্তরাষ্ট্র। জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তাই তেল রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে হাইড্রোলিক ফ্র্যাকচারিং প্রযুক্তির সুবাদে নর্থ ডেকোটা এবং টেক্সাসের পাথুরে খনির কঠিন আস্তরণ ভেদ করে তেল উত্তোলনের ফলে জ্বালানি সরবরাহ বেড়েছে। স্থানীয় চাহিদা পূরণ করে উদ্বৃত্তও থাকছে এখন। যার সুবাদে গত চার দশকেরও বেশি সময় ধরে অপরিশোধিত তেল রফতানিতে যে নিষেধাজ্ঞা বহাল ছিল তা আংশিকভাবে প্রত্যাহার হয়েছে

যদিও এখন পর্যন্ত অপরিশোধিত তেল রফতানির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়নি। এর বদলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় একটি বিশেষ রুলিং জারি করেছে, যেখানে শুধু পাথুরে খনির কঠিন আস্তরণ ভেদ করে উত্তোলন করা তেল রফতানির অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

sentbe-top