cosmetics-ad

শুরুতেই হোঁচট আর্জেন্টিনার

paraguea

কোপা আমেরিকা মিশনের শুরুতেই খানিকটা হোঁচট খেয়েছে তারকা সমৃদ্ধ আর্জেন্টিনা। অপেক্ষাকৃত দুর্বল দল প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ২-২ গোলে ড্র দিয়ে মিশন শুরু করলো লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। বাংলাদেশ সময় শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটায় স্তেদিও লা পোর্তাদে দি লা সেরেনায় মুখোমুখি হয় দু’দল।

ম্যাচের শুরু থেকে প্যারাগুয়েকে চেপে ধরে আর্জেন্টিনা। খেলার ১৮ মিনিটেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি আর্জেন্টিনা।

তবে দলের পক্ষে প্রথম সাফল্য এনে দেন অ্যাগুয়েরো। ম্যাসির অ্যাসিস্ট করা বল থেকে ডান পায়ের জোড়ালো শটটি যখন প্যারাগুয়ের জালে প্রবেশ করে খেলার গল্প তখনও অনেক বাকি। এর সাত মিনিট পর অর্থাৎ ৩৬ মিনিটে পেনাল্টি থেকে মেসির গোল আর্জেন্টাইনদের পূর্ণ পয়েন্টের হাতছানি দিতেই পারে।

প্রথমার্ধে মাত্র ২৪ শতাংশ বল নিজেদের দখলে রাখতে পারা প্যারাগুয়ের খেলোয়াড়রা দ্বিতীয়ার্ধে তা বাড়িয়ে শেষ পর্যন্ত ৩১ শতাংশ করে।

প্রথমার্ধে দুই গোল হজম করে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল পরিশোধে মরিয়া হয়ে ওঠে প্যারাগুয়ে। ৬০ মিনিটে প্যারাগুয়েকে ম্যাচে ফেরান ভালদেস। নেস্টর অর্তিগোজার অ্যাসিস্ট করা বল ডান পায়ের জোড়ালে শটে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি।

তবে ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণে শেষ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে তা হয়তো ভাবেননি মেসি, অ্যাগুয়েরো, ডি মারিয়ারা। নইলে ৯০ মিনিটে প্যারাগুয়ের লুকাস বাররিয়স বাম পায়ের শট কেনো আর্জেন্টাইন দর্শকদের ‘পিন পতন’ নীরবতায় ডুবিয়ে দেবে।

এরপর অতিরিক্ত সময় হিসেবে আরো তিন মিনিট খেলার সুযোগ পায় দুই দল। তবে সে সময়ে আর কোনো গোল না হওয়ায় ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের।

৩৬ মিনিটের গোলের মাধ্যমে কোপা আমেরিকায় টানা পাঁচ ম্যাচে গোলের খড়া কাটালেন মেসি। এর আগে ২০০৭ সালে মেক্সিকোর বিপক্ষে সর্বশেষ গোল করেন তিনি।

পুরো ম্যাচে আর্জেন্টিনা ৯টি কর্নার করে। আর ৭০ মিনিটের মাথায় প্রথম র্কনারের সুযোগ পাওয়া প্যারাগুয়ে করে তিনটি কর্নার। ম্যাচে প্যারাগুয়ের চার খেলোয়াড় ও আর্জেন্টিনার দুই খেলোয়াড় হলুদ কার্ড পান।