cosmetics-ad

আজই সেঞ্চুরি হচ্ছে মেসির

messi

আর্জেন্টিনার ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসি। নতুন মাইলফলক স্পর্শ করাই তার কাজ। রেকর্ডের পর রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়েন। তার রেকর্ড গড়ার গতি দেখলে বোঝার উপায় থাকে না, তিনি রেকর্ডের পেছনে ছুটছেন নাকি রেকর্ড তার পেছনে ছুটছে। আজও তিনি নতুন একটি মাইলফলকের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে।

কোপা আমেরিকায় গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে দিবাগত রাত সাড়ে তিনটায় জ্যামাইকার বিপক্ষে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা। এই ম্যাচে মাঠে নামার মধ্য দিয়ে আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে শততম ম্যাচ খেলার মাইলফলক স্পর্শ করবেন লিওনেল মেসি।

আর্জেন্টিনার হয়ে ১০০টি ম্যাচ খেললেও এখনো কোনো বড় শিরোপা জিততে পারেননি তিনি। বিষয়টিকে জনপ্রিয় সংবাদ সংস্থা এএফপি উল্লেখ করেছে ‘Too many tears and no titles’।

নতুন এই মাইলফলকের বিষয়ে মেসি আর্জেন্টিনার দৈনিক লা নেশনকে বলেন, ‘এই রেকর্ড গড়তে পেরে আমি খুশি। আশা করছি, জয়ের মধ্য দিয়ে বিষয়টিকে উদযাপন করতে পারব। পাশাপাশি এও আশা করছি, কোপা আমেরিকার শিরোপা তুলে ধরতে পারব।’

২০০৫ সালে হাঙ্গেরির বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল লিওনেল মেসির। তার অভিষেকটা অবশ্য সুখের ছিল না। ছিল অশ্রুভেজা। ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট হাঙ্গেরির মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা। ১৮ বছর বয়সি মেসি দ্বিতীয়ার্ধে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামেন। তবে কয়েক মিনিটের মাথায় হাঙ্গেরির ডিফেন্ডার ভিলমোস ভেইনচাককে কনুই দিয়ে ধাক্কা দেওয়ার কারণে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। ম্যাচ শেষে সতীর্থরা ড্রেসিং রুমে গিয়ে দেখেন মেসি অঝোর ধারায় কাঁদছেন। সেটা নিয়ে আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম ফলাও করে নিউজ করেছিল।

অশ্রুসিক্ত অভিষেক থেকে আজ তিনি আর্জেন্টিনার হয়ে শততম ম্যাচ খেলতে যাচ্ছেন। আর্জেন্টিনার হয়ে বড় কোনো শিরোপা না জিততে পারলেও বার্সেলোনার হয়ে কোনো শিরোপা জেতা বাদ দেননি। এখানেই শেষ নয়, চার-চারবার হয়েছেন বিশ্বসেরা খেলোয়াড়। আর্জেন্টিনার হয়ে ৯৯ ম্যাচে করেছেন ৪৬ গোল।

এবার হয়তো সময় এসেছে আর্জেন্টিনার হয়ে বড় শিরোপা জয়ের বদনাম ঘোচানোর! মেসি, আগুয়েরো, তেভেজরা আর্জেন্টিনার ২২ বছরের শিরোপা খরা ঘোচানোর মিশন নিয়েই চিলিতে গেছেন। আকাশি-নীল জার্সিধারীরা ১৯৯৩ সালে সবশেষ কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতেছিল। লিওনেল মেসির মাইলফলক স্পর্শ করার টুর্নামেন্টটি এবার আর্জেন্টিনার হবে কি?