cosmetics-ad

‘জেলে’ যেতে হচ্ছে এ শিশুদেরকেও

kids

একটু সুখের আসায় বিভিন্ন দেশ থেকে লোকজন পারি জমায় অস্ট্রেলিয়ায়। কিন্তু সেখানেও রয়েছে কড়াকড়ি, অনুমতি ছাড়া ঢুকতে দেয়া হয় না। তাই দালালের খপ্পরে পড়ে কিংবা অন্যকোনো পন্থায় জাহাজ চড়ে যেসব অ্যাসাইলাম প্রার্থী অস্ট্রেলিয়ায় আসে তাদের ধরে নিয়ে গিয়ে প্রশান্ত মহাসাগরের দুটি দ্বীপ নাউরু এবং পাপুয়া নিউ গিনিতে বিশেষভাবে তৈরি কারাগারে পাঠিয়ে দেয় কর্তৃপক্ষ। আর সে কারণে ওই ‘জেলে’ থাকতে হচ্ছে তাদের শিশুদেরকেও।

অবশ্য একই পন্থায় সে দেশে যাওয়া বাংলাদেশি এক নারী অবৈধ আশ্রয়প্রার্থীদের জেলে পাঠানোর প্রথার বিরুদ্ধে আদালতে চ্যালেঞ্জ করেন। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার হাইকোর্ট বুধবার সে মামলাটি খারিজ করে দিয়েছেন। সেই সঙ্গে সরকারের অ্যাসাইলাম নীতির পক্ষেই রায় দেন আদালত।

অবশ্য মানবাধিকার কর্মীরা এই রায়ের সমালোচনা করে বলছেন, এখন ২০৬ জনেরও বেশি আশ্রয়প্রার্থীকে কারাগারে ফেরত পাঠানো হবে। এদের সাথে থাকবে ৫০ শিশু, যাদের মধ্যে ৩৭ শিশুর জন্ম হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার মূল ভূখণ্ডেই।

জানা গেছে, ওই বাংলাদেশি নারী বেশ কয়েক বছর আগে জাহাজে চড়ে অবৈধভাবে অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশের চেষ্টা করে ধরা পড়েন। পরে তাকে দ্বীপ রাজ্য নাউরুতে পাঠানো হয়। সেখানে তিনি অন্তঃসত্ত্বা হলে চিকিৎসার জন্য অস্ট্রেলিয়ায় ঢুকতে দেয়া হয়।

শিশুর জন্মের পর কর্তৃপক্ষ তাকে আবার নাউরুতে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা করলে মানবাধিকার কর্মীদের সহায়তায় তিনি সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করেন। কিন্তু অবশেষে তিনি হেরেই গেলেন।

সে কারণে শিশুসহ তাকে আবারো কারাগারে যেতে হতে পারে। এমনটাই জানাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমগুলো। তবে সংবাদমাধ্যমগুলো ওই নারীর নাম প্রকাশ করেনি।