sentbe-top

ইউরোপে যাওয়া শরণার্থীদের ফেরত নেবে তুরস্ক

তুর্কি ভূখণ্ড থেকে ইউরোপে প্রবেশকারী সব শরণার্থীকে ফিরিয়ে নেবে তুরস্ক। বিনিময়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) তুরস্ককে আরো অর্থসাহায্য ও ভিসামুক্ত ভ্রমণ সুবিধা দেয়ার পাশাপাশি জোটে দেশটির অন্তর্ভুক্তি প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে পদক্ষেপ নেবে। ব্রাসেলসে তুর্কি প্রধানমন্ত্রী আহমেত দাভুতোগলুর সঙ্গে ইইউভুক্ত দেশগুলোর রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের বৈঠকে দুই পক্ষের মধ্যে এ সমঝোতা হয়। খবর রয়টার্স।

তুর্কি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ইইউ নেতাদের বৈঠকটি সোমবার অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপনীত সমঝোতার ভিত্তিতে তুরস্ক ও ইইউ ১৭ ও ১৮ মার্চ আরেক দফা সংলাপে বসবে। তখন দুই পক্ষের মধ্যে এসব বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষর হবে।

wইইউভুক্ত দেশগুলো শরণার্থী ইস্যুতে নিজেদের মধ্যে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল ও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন শরণার্থীদের ফিরিয়ে নিতে তুরস্কের প্রস্তাবকে এজন্য উচ্ছ্বসিতভাবে স্বাগত জানিয়েছেন।

২০১৫ সালের প্রথম থেকে এ পর্যন্ত মধ্যপ্রাচ্যসহ পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলের ১০ লাখের বেশি মানুষ যুদ্ধ ও দারিদ্র্য থেকে বাঁচতে ইউরোপে পৌঁছেছে। এদের মধ্যে বেশির ভাগই তুরস্ক থেকে সমস্যাসংকুল সমুদ্রযাত্রার মাধ্যমে গ্রিসের উপকূলে পৌঁছেন। এর পর আরো উত্তরে অগ্রসর হয়ে বলকান দেশগুলোর ভূখণ্ড পাড়ি দিয়ে তারা জার্মানিসহ উত্তর ইউরোপের বিভিন্ন দেশে প্রবেশ করেন।

ব্রাসেলসের বৈঠকে তুর্কি প্রধানমন্ত্রী আহমেত দাভুতোগলু ইইউ নেতাদের বলেন, তুরস্কের ভূখণ্ড থেকে যারা ইউরোপে প্রবেশ করে, আমরা সেসব শরণার্থীকে ফিরিয়ে নিতে চাই। পাশাপাশি তুর্কি সমুদ্রসীমায় যেসব শরণার্থীকে আটক করা হয়, তাদেরও আমরা আশ্রয় দিতে চাই।

ইইউ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, অভিনব এ অবস্থান গ্রহণের মাধ্যমে আমরা অবৈধ অভিবাসনকে নিরুত্সাহিত, মানব পাচারকারীদের প্রতিহত করতে এবং ইউরোপে নিয়মমাফিক ও শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে আসতে ইচ্ছুক মানুষদের সাহায্য করতে চাই।

রয়টার্সের হাতে আসা একটি দলিলে দেখা যায়, তুর্কি ভূখণ্ড থেকে ইউরোপে অভিবাসীর ঢল ঠেকানোর বিনিময়ে আহমেত দাভুতোগলু ইইউর কাছে সিরীয় শরণার্থীদের আশ্রয় দেয়ার জন্য তুরস্ককে দেয়া অর্থসাহায্যের পরিমাণ দ্বিগুণ করা এবং গ্রিসের এজিয়ান দ্বীপ থেকে ফিরিয়ে নেয়া একজন শরণার্থীর বিপরীতে তুরস্ক থেকে একজন সিরীয় শরণার্থীকে ইউরোপে গ্রহণ করার দাবি জানিয়েছেন। এছাড়া তিনি তুর্কি নাগরিকদের জন্য ইইউভুক্ত দেশগুলোর ভিসাপ্রাপ্তি সহজ করা এবং তুরস্কের ইইউ সদস্যপদ প্রাপ্তির আলোচনায় আরো পাঁচটি বিষয় অন্তর্ভুক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন।

ইইউ নেতারা তুরস্ককে বায়োমেট্রিক পাসপোর্ট প্রবর্তন এবং ইসলামী দেশগুলোর নাগরিকদের জন্য ভিসানীতি পরিবর্তনের শর্ত দিয়েছেন। তুরস্ক এসব শর্ত পূরণ করলে তারা শিগগিরই তুর্কি নাগরিকদের ইইউ দেশগুলোয় ভিসামুক্ত ভ্রমণ সুবিধা দিতে সম্মত হয়েছেন। তুরস্কের দাবিমতো শরণার্থী ইস্যুতে সাহায্যের পরিমাণ কত বাড়ানো হবে, সে ব্যাপারে ইইউ নেতারা নির্দিষ্ট কিছু বলেননি।সূত্র ঃ বণিক বার্তা ।

sentbe-top