sentbe-top

যুক্তরাজ্যে প্রথম গর্ভবতী পুরুষের সন্তান প্রসব!

ukযুক্তরাজ্যে প্রথমবারের মতো ২১ বছর বয়সী একজন অন্তঃসত্ত্বা পুরুষ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। তাঁর নাম হেইডেন ক্রস। এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্লস্টারশায়ারের রয়্যাল হসপিটালে গত ১৬ জুন হেইডেন একটি ফুটফুটে কন্যাসন্তানের জন্ম দিয়েছেন। সন্তানের জন্মের পর হেইডেন বলেন, ‘আমার মেয়ে ঠিক দেবদূতের মতো হয়েছে। সবদিক দিয়েই নিখুঁত সে। আমি খুবই ভাগ্যবান।’

২১ বছর আগে নারী হিসেবে জন্ম নিয়েছিলেন আজকের হেইডেন। তখন তাঁর নাম ছিল পেইজ। এরপর তিনি হরমোন থেরাপির মাধ্যমে নারী থেকে পুরুষে রূপান্তরিত হয়েছেন। তবে লিঙ্গান্তরের সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া শেষ করতে শল্যচিকিৎসা করতে হবে। গত তিন বছর ধরে তিনি পুরুষ পরিচয়ে জীবন কাটাচ্ছেন। কিছুদিন আগে শল্যচিকিৎসার দিনক্ষণও নির্দিষ্ট হয়েছিল। কিন্তু যুক্তরাজ্যের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস (এনএইচএস) হেইডেনের ডিম্বাণু সংরক্ষণের জন্য অর্থ খরচ করতে রাজি হয়নি। এতেই বেঁকে বসেন হেইডেন। কারণ, ডিম্বাণু সংরক্ষণ করা না হলে ভবিষ্যতে সন্তানের জন্ম দিতে পারবেন না তিনি। আর এনএইচএস এর জন্য প্রয়োজনীয় চার হাজার পাউন্ড খরচ করতে রাজি নয়।

গ্লস্টারশায়ারের বাসিন্দা হেইডেন ক্রস একটি সুপারশপের কর্মী হিসেবে কাজ করতেন। এখন অবশ্য কোনো কাজ করছেন না। মেয়ের বয়স এক বছর হলেই আবার চাকরির খোঁজ শুরু করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

ukহেইডেন বলেন, সম্পূর্ণ লিঙ্গান্তরের আগেই সন্তানের জন্ম দিতে চেয়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘গত সেপ্টেম্বরে একজন ব্যক্তির দান করা শুক্রাণুর মাধ্যমে অন্তঃসত্ত্বা হই আমি। ওই ব্যক্তিকে ফেসবুকে খুঁজে পেয়েছিলাম আমি। তবে ওই ফেসবুক গ্রুপটি এখন বন্ধ। শুক্রাণুর জন্য আমাকে কোনো অর্থ খরচ করতে হয়নি।’

এখন নিজের লিঙ্গান্তরের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে চান হেইডেন। যত দ্রুত সম্ভব শল্যচিকিৎসা করতে চান তিনি। এনএইচএসে লিঙ্গান্তরের শল্যচিকিৎসায় রোগীপ্রতি খরচ হয় গড়ে ২৯ হাজার পাউন্ড।

অন্যদিকে দ্য টেলিগ্রাফ বলছে, যুক্তরাজ্যে আরও একজন অন্তঃসত্ত্বা পুরুষ সম্প্রতি সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। ওই ব্যক্তির নাম স্কট পার্কার (২৩)।

তবে পুরুষের সন্তান প্রসবের ঘটনা এটিই প্রথম নয়। ২০০৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রে থমাস বিটি নামের এক পুরুষ প্রথম সন্তানের জন্ম দেন। থমাসও জন্মসূত্রে নারী ছিলেন। আংশিকভাবে লিঙ্গান্তর করলেও নিজের গর্ভ রাখায় অন্তঃসত্ত্বা হতে পেরেছিলেন তিনি।

sentbe-top