প্রথমবারের মতো সৌদি আরবে নারীদের সাইক্লিং রেইস

woman cycleingসৌদি আরবে এই প্রথম একদল নারী দশ কিলোমিটার রাস্তায় সাইক্লিং রেইস বা প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন। দেশটির রক্ষণশীল সমাজে রাস্তায় নারীদের সাইকেল চালানোর এই প্রতিযোগিতা হওয়ার পর তা নিয়ে সামাজিক নেটওয়ার্কে ব্যাপক আলোচনা চলছে।

সৌদি আরবের জেদ্দা শহরে এই সাইক্লিং রেইস বা প্রতিযোতায় ৪৭ জন নারী অংশ নিয়েছিলেন। এই ৪৭ জন নারীই জেদ্দা শহরে নির্ধারিত পুরো দশ কিলোমিটার রাস্তা সাইক্লিং করেছেন। বি অ্যাকটিভ নামের একটি সংগঠন জেদ্দার স্থানীয় প্রশাসনের সাথে মিলে যৌথভাবে নারীদের এই সাইক্লিং রেইস বা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল।

আয়োজক সংগঠনের কর্মকর্তা নাদিমা আবু আল এনিম স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে বলেছেন, সৌদি আরবের মতো রক্ষণশীল দেশে প্রথমবারের এই আয়োজনে এত সংখ্যক নারী অংশ নিয়েছেন, যেটা তাদেরকে আশ্চর্য করেছে। তিনি গত বছর নারীদের জন্য একটি বাইসাইকেল ক্লাব গঠন করেছেন।

sentbe BT

এর মাধ্যমে নারীদের সাইকেল চালানোর পক্ষে সচেতনতা সৃষ্টির চেষ্টা করা হচ্ছে। অনেক নারী এই ক্লাবে সাইক্লিং করতে আসেন। কিন্তু তাদের সাথে পুরুষ অভিভাবকরাও আসেন। সাইক্লিং এর জন্য পোশাক নিয়েও প্রথমদিকে সমস্যা হতো। এই ক্লাবের মাধ্যমে একটা পরিবেশ তৈরি হয়েছে। এছাড়া সৌদি সরকার এবং স্থানীয় প্রশাসন তাদের সাহস যুগিয়েছে। সেকারণে তারা এই বড় আয়োজন করতে পেরেছেন বলে আয়োজকরা বলেছেন।

তবে প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে রাস্তায় সাইক্লিং প্রতিযোগিতা হওয়ার পর সামাজিক নেটওয়ার্কে এর পক্ষে বিপক্ষে নানান আলোচনা অব্যাহত রয়েছে। টুইটারে অনেকে এই আয়োজনের প্রশংসা করেছেন। অনেকে এর প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন।

অনেকে আবার তীব্র সমালোচনায় মেতেছেন। যেমন একজন টুইট করেছেন, “আমি ধর্মগুরু নই। কিন্তু আমি মনে করি, একজন নারীর শরিরের আকষর্ণীয় অংশগুলো পুরুষদের দেখিয়ে সাইকেল চালানো ঠিক হয়নি। তাদের এটি প্রকাশ্যে করা উচিত হয়নি।” আরেকজন টুইট করেছেন, “নারীদের খেলাধূলা করা প্রয়োজন। কিন্তু সেটা পুরুষদের সামনে করা ঠিক নয়।”

তবে আয়োজকরা তাদের এ ধরণের উদ্যোগ অব্যাহত রাখার কথা বলছেন।