টেস্টে ক্রিকেটে স্বাগত আয়ারল্যান্ড

irelandসীমিত পরিসরের ক্রিকেটে নানা অঘটনের জন্ম দেওয়ায় আয়ারল্যান্ডকে সবাই আন্ডারডগ হিসেবে মানেন। ২০০৭ বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে হারানো, ২০১১ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে হারানোয় আয়ারল্যান্ড প্রশংসিত হয়েছে বিশ্বজুড়ে। এবার টেস্টে ক্রিকেটে তাদের ডানা মেলার পালা।

ক্রিকেট বিশ্বের এগারোতম দেশ হিসেবে টেস্টে অভিষেক হতে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ডের। আর প্র্রথম মুখোমুখিতেই আয়ারল্যান্ড পাচ্ছে পাকিস্তানকে। ঘরের মাঠ ডাবলিনে দুই দলের ম্যাচটি শুরু হবে বিকেল ৪টায়।

২০০৭ সালে ওয়ানডে স্ট্যাটাস পাওয়ার দশ বছর পর টেস্ট স্ট্যাটাস পায় আয়ারল্যান্ড। আয়ারল্যান্ড ও আফগানিস্তানের আগে সবশেষ টেস্ট অঙ্গনে পা রেখেছিল বাংলাদেশ। সেই হিসেবে নতুন টেস্ট দল পেতে ক্রিকেট বিশ্বকে অপেক্ষা করতে হলো ১৮ বছর।

ireland-pakistan

তবে ক্রিকেটে আয়ারল্যান্ডের শুরুটা অনেক আগে, ১৭৩১ সালে। ১৯৯৩ সালে আইসিসি তাদেরকে সহযোগী দেশ করে। এরপর শুরু হয় তাদের পথ চলা। ২০০৭ সালে ওয়ানডে স্ট্যাটাস পাওয়ার পর থেকে সুনাম অর্জন করে যাচ্ছেন আইরিশরা। দ্বিপাক্ষিক সিরিজগুলোতে এবং বিশ্ব মঞ্চে নিয়মিত ভালো করে অর্জন করেছে টেস্ট স্ট্যাটাস।

অপেক্ষার অবসান হতে যাচ্ছে আইরিশদের। ক্রিকেটারদের গায়ে উঠছে স্বপ্নের সাদা পোশাক। আইরিশ ক্রিকেটের নতুন অধ্যায় শুরু হবে উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডের হাত ধরে। পাকিস্তানকে হারিয়ে ২০০৭ বিশ্বকাপের যাত্রা দারুণ করেছিল তারা। এবার অভিষেক ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ সেই পাকিস্তান। টেস্ট অভিষেকে শুধু জয় আছে অস্ট্রেলিয়ার। ১৮৭৭ সালে তারা হারিয়েছিল ইংল্যান্ডকে। অস্ট্রেলিয়ার পাশে নাম লিখাতে পারবে কি আয়ারল্যান্ড? উত্তর জানা যাবে কিছুদিনের মধ্যেই।