সৌদি আরবকে কাতারের ‘উচিত শিক্ষা’!

saudi‘রাজায় রাজায় যুদ্ধ হয় উলুখাগড়ার প্রাণ যায়!’ প্রবাদটি বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে স্মরণ করিয়ে দেওয়া কেন? যথেষ্ট কারণ আছে বলেই বিশ্বকাপের চার দিন আগে খেলার খবরে এমন কথা। তবে এখানে উলুখাগড়াদের প্রাণ যাবে না, পুড়বে হৃদয়। বিশ্বকাপে নিজের দেশের খেলা না দেখতে পারাটা তো অনেকটাই প্রাণ যাওয়ার মতোই বলা যায়! বলা হচ্ছে সৌদি আরবের দর্শকদের কথা। যাঁরা রাশিয়া বিশ্বকাপের খেলা টিভিতে দেখতে পারবেন কি না, এ নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়।

সৌদি আরব ও কাতারের মধ্যকার রাজনৈতিক জটিলতার প্রভাব এসে পড়েছে ফুটবলেও। এ কারণেই সৌদি আরবের দর্শকেরা ফুটবল বিশ্বকাপ দেখা থেকে বঞ্চিতও হতে পারেন। সৌদি আরব ও তার মিত্ররা কাতারের ওপর দীর্ঘ অবরোধ আরোপ করে রেখেছিল। কাতারকে কোণঠাসা করে ফেলতে কী করেনি তারা। এবার পাল্টা জবাব দেওয়ার সুযোগ পেয়েছে কাতার। মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকার বেশ কিছু দেশের বিশ্বকাপের প্রচারস্বত্ব আছে কাতারভিত্তিক বিইন মিডিয়া গ্রুপের হাতে। এসব অঞ্চলে টিভিতে খেলা দেখাতে হলে বিইন মিডিয়া গ্রুপের অনুমতি লাগবেই। এখন কাতারের এই প্রতিষ্ঠানটি সৌদি আরবকে যদি খেলার টিভি ফিড না দেয়!

গত বছর থেকে কাতারকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে তাদের দাবি মানার জন্য চাপ দিচ্ছে চারটি উপসাগরীয় দেশ—সৌদি আরব, বাহরাইন, মিসর ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। যার নেতৃত্বে আছে সৌদি আরব। আকাশ, নৌ ও স্থল সব পথেই কাতারকে বন্দী করার চেষ্টা করে যাচ্ছে সৌদিরা। কাতারের তিন দিকের স্থলসীমায় সৌদি আরব। খাদ্য ও আরও বেশ কিছু নিত্যপণ্য দেশটি সৌদি আরব থেকে আমদানি করত। মাথাপিছু আয়ে মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে ধনী দেশ সেই কাতারকে রীতিমতো কাত করে ফেলেছিল সৌদি আরব এক অবরোধ দিয়ে!

এবার কাতারের হাতে পাল্টা জবাব দেওয়ার সুযোগ। ১৪ জুন স্বাগতিক রাশিয়া-সৌদি আরব ম্যাচ দিয়ে মাঠে গড়াচ্ছে বিশ্বকাপ। অথচ এখন পর্যন্ত যে খবর, তাতে সৌদি আরবের মানুষ অন্তত বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ দেখতে পারবেন না! গত মাসেই বিইন মিডিয়া অভিযোগ করে, সৌদি আরব রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় তাদের কাছ থেকে ভিডিও ‘চুরি’ করে মৌসুমজুড়ে প্রিমিয়ার লিগ-চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ প্রচার করেছে। সে অনুমতিই তো সৌদি আরবের কোনো চ্যানেলের নেই!

সবমিলিয়ে ভজকট অবস্থা আর কী! বিইন মিডিয়ার সঙ্গে বিশ্বকাপের ম্যাচ দেখানোর ব্যাপারে চুক্তি করার কথা থাকলেও শেষ মুহূর্তে সরে দাঁড়িয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। উল্টো তাদের হয়ে ফিফাকে বিইন মিডিয়ার সঙ্গে সমঝোতা করতে অনুরোধ করেছে! এসব ঝামেলায় পড়ে শেষমেশ তাই বিশ্বকাপটাই না-ও দেখা হতে পারে সৌদি অধিবাসীদের! আর সৌদি অবরোধে কষ্টের শিকার হওয়া কাতারিরা নাকি এতে ভীষণ খুশি। এবার উচিত শিক্ষা তো হয়েছে!

সৌজন্যে- প্রথম আলো