sentbe-top

সহিংসতার মধ্যেই জাতীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে পাকিস্তানে

pakistan-electionব্যাপক সহিংসতা ও বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষের মধ্য দিয়ে চলছে পাকিস্তানের ১১ তম সাধারণ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। কোয়েটায় একটি ভোট কেন্দ্রের বাইরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় পুলিশ কর্মকর্তাসহ নিহত হয়েছে অন্তত ২৫ জন। আহত ৬০। তাদের অনেকের অবস্থা গুরুতর। সহিংসতার আশঙ্কা নিয়েই স্থানীয় সময় বুধবার সকাল আটটায় ৮৫ হাজারের বেশি ভোটকেন্দ্রে একযোগে শুরু হয় ভোটগ্রহণ।

চলবে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত। ভোট দিচ্ছেন সাড়ে ১০ কোটি ভোটার। ভোট উপলক্ষে দিনটিকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। আর দেশজুড়ে নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা। মোতায়েন রয়েছে তিন লাখ ৭১ হাজার সেনাসহ অন্তত আট লাখ নিরাপত্তা কর্মী। তারপরও বেশ কয়েকটি ভোট কেন্দ্রে সংঘর্ষ, সহিংসতা ও আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে।

pakistan-electionকোয়েটায় এক ভোট কেন্দ্রের বাইরে টহলরত পুলিশ ভ্যান লক্ষ্য করে আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছে। এ সময় ঐ কেন্দ্রে ভোটারদের লম্বা লাইন ছিলো। এদিকে, বেলুচিস্তানের নাসিরাবাদের একটি ভোটকেন্দ্রে আগুন ধরিয়ে দিলে অন্তত দু’জন দগ্ধ হয়। তারপরও ভোট নিয়ে দেশটির সাধারণ জনতার মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ দেখা গেছে। এবারের নির্বাচনে লড়াই হচ্ছে ত্রিমুখী।

তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা চলছে সেনাবাহিনী ও পশ্চিমা মদদপুষ্ট ইমরান খানের দল পিটিআই’র সাথে দুর্নীতির দায়ে কারাবন্দি সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের দল-পিএমএল-এনের মধ্যে। এছাড়া, প্রথমবারের মতো নির্বাচনে লড়ছেন বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলাওয়াল ভুট্টো।

sentbe-top