cosmetics-ad

পাকিস্তানকে লজ্জা দিয়ে যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারত

india

ব্যাটসম্যানরাই ম্যাচ থেকে ছিটকে দিয়েছেন দলকে। তবে পাকিস্তানের বোলিংয়ের তো আলাদা সুনাম আছে। বোলারদের দিকে তাই একটুখানি আশা নিয়ে তাকিয়ে ছিলেন দলটির সমর্থকরা, যদি কিছু হয়! সেই বোলাররা দলকে ডোবালেন আরও বড় লজ্জায়।

পচেফস্ট্রমে যুব বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ব্যাটিং ব্যর্থতায় ভারতের সামনে মাত্র ১৭৩ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দিয়েছিল পাকিস্তান। এমন এক লক্ষ্য পেয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি দলকে বড়সড় লজ্জাই দিল ভারতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

পচেফস্ট্রমে সেমিফাইনালের গুরুত্বপূর্ণ লড়াইটি ১০ উইকেটে বড় ব্যবধানে জিতে ফাইনালে নাম লিখিয়েছে ভারত। ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ হবে বাংলাদেশ অথবা নিউজিল্যান্ড।

প্রায় ১৫ ওভার হাতে রেখেই খেলা শেষ করে দিয়েছেন ভারতের দুই ওপেনার ইয়াসাস্ভি জায়াশওয়াল আর দ্বীভংস সাক্সেনা। ১৭৬ রানের হার না মানা উদ্বোধনী জুটি গড়েন তারা। জায়াশওয়াল ১১৩ বলে ১০৫ আর সাক্সেনা ৯৯ বলে ৫৯ রান নিয়ে বিজয়ীর বেশেই মাঠ ছাড়েন।

এর আগে শীর্ষ চার ব্যাটসম্যানের মধ্যে দুজনই হাফসেঞ্চুরি করলেও লড়াকু সংগ্রহ পর্যন্ত যেতে পারেনি পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল। ভারতীয় বোলারদের তোপে ১৭২ রানেই গুটিয়ে যায় দলটি।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে ধাক্কা খেলেও ওপেনার হায়দার আলির ব্যাটে একটা সময় মোটামুটি ভালো অবস্থানেই ছিল পাকিস্তান। ২ উইকটেই তুলে ফেলেছিল ৯৬ রান। ২৬তম ওভারে এসে আউট হয়ে যান হাফসেঞ্চুরিয়ান হায়দার। ৭৭ বলে ৯ বাউন্ডারিতে তিনি করেন ৫৬ রান।

এরপর ভারতীয় যুব দলের বোলাররা চেপে ধরেন পাকিস্তানকে। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট তুলে নিতে থাকেন তারা। একটা প্রান্ত ধরে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন অধিনায়ক রোহাইল নাজির।

অষ্টম ব্যাটসম্যান হিসেবে শেষতক তিনিও ফিরলে ১৬৯ রানে ৮ উইকেট হারায় পাকিস্তান। ১০২ বলে ৬ বাউন্ডারিতে রোহাইল করেন ৬২ রান। তিনি আউট হওয়ার পর আর মাত্র ৩ রান যোগ করতে পেরেছে আনপ্রেডিক্টেবলরা। ইনিংসের ৪১ বল বাকি থাকতেই গুটিয়ে গেছে ১৭২ রানে।

ভারতের পক্ষে ২৮ রানে ৩টি উইকেট নেন সুশান্ত মিশ্র। ২টি করে উইকেট শিকার কার্তিক তায়াগি আর রবি বিস্নয়ের।