sentbe-top

আপত্তির মুখে বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিল আড়ং

aarong 5চলতি ঈদ ও পূজা উপলক্ষে তৈরি করা নিজেদের পোশাকের বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিয়েছে দেশী ফ্যাশন হাউস আড়ং। গতকাল বিকালে তারা এক বিবৃতিতে ক্ষমা প্রার্থনাপূর্বক বিজ্ঞাপন সরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দেয়। এরপর নিজেদের ফেসবুক পেজ থেকে কয়েকটি ছবি সরিয়ে নেয় তারা। বিভিন্ন মহল থেকে ওঠা আপত্তির মুখে বিলবোর্ডে প্রচারিত কিছু বিজ্ঞাপন সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

আড়ংয়ের সাম্প্রতিক এসব বিজ্ঞাপনে দেখা যায়, ঘরের ভেতর মডেলরা পানির মাঝে দাঁড়িয়ে আছেন। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তি ওঠে। সেখানে দাবি করা হয়, দেশজুড়ে যে বন্যা চলছে, তার প্রতি এ বিজ্ঞাপনে ‘অবজ্ঞা’ প্রকাশ হয়েছে। তবে আড়ং তাদের বিবৃতিতে জানায়, এ বিজ্ঞাপনের পরিকল্পনা তারা করেছিল বন্যা শুরুরও আগে। তারা বৃষ্টি ও প্রতিমা বিসর্জনের ধারণা মাথায় রেখে বিজ্ঞাপন তৈরি করেছিল। এমন বন্যা পরিস্থিতি অনাকাঙ্ক্ষিত এবং এর প্রতি সহমর্মী হয়ে তারা বিজ্ঞাপনগুলো সরিয়ে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে।

দেশের জনপ্রিয় এ ফ্যাশন হাউসটি তাদের ফেসবুক পেজে জানায়, ‘আড়ং প্রতি বছর নিজেদের বিজ্ঞাপন প্রচার ও পণ্যের পসারে নতুন নতুন ধারণা যুক্ত করে। চলতি বছরের বিজ্ঞাপন তৈরি করা হয়েছিল বৃষ্টির মৌসুম ও প্রতিমা বিসর্জনের ধারণাকে ফুটিয়ে তুলতে এবং এর কাজ সাম্প্রতিক বন্যা শুরুর অনেক আগেই এগিয়ে গিয়েছিল। বিজ্ঞাপন প্রচারের সময় আমরা বুঝতে পারলাম, কেন এ প্রচারণা বন্যাদুর্গতদের প্রতি অসহমর্মিতা প্রকাশ করে। এটা আমাদের উদ্দেশ্য ছিল না এবং আমরা এজন্য ক্ষমাপ্রার্থী। আমরা আমাদের সাম্প্রতিক প্রচারণা থেকে কয়েকটি ছবি সরিয়ে নেব।’

এ বিষয়ে বিজ্ঞাপন নির্মাতা অমিতাভ রেজা বণিক বার্তাকে বলেন, কোনো প্রতিষ্ঠান তার ব্যবসায়িক প্রয়োজনে বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিতেই পারে। আড়ংয়ের সিদ্ধান্তকে তিনি দায়বদ্ধতা পূরণ হিসেবে দেখেন। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানকে তার মতো করে ব্যবসায়িক কৌশল নির্ধারণের সুযোগ জারি রাখার পক্ষেও তিনি মত দেন।

আবহমান বাংলার ঐতিহ্য তুলে ধরার প্রতিষ্ঠান হিসেবে আড়ং মধ্য ও উচ্চবিত্তের কাছে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে ২৪ সেপ্টেম্বর নতুন বিজ্ঞাপনগুলো পোস্ট করে। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়; যার পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল বিকালে এক বিবৃতিতে তারা কিছু কিছু বিজ্ঞাপন সরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দেয়। বণিকবার্তা।

sentbe-top