sentbe-top

কোরিয়ার বৃহত্তম অভিবাসী উৎসবের নেতৃত্বে বাংলাদেশ

Immigrant Festival
২০১৬ সালে বাংলাদেশীদের শোভাযাত্রা

অভিবাসীদের নিয়ে কোরিয়ার সবচেয়ে বড় সাংস্কৃতিক উৎসবে এবার নেতৃত্ব দিবে বাংলাদেশ। কোরিয়াতে বসবাসরত বিদেশী অভিবাসী দেশগুলোর মধ্য থেকে একটি দেশ (Honor Country হিসেবে) এই উৎসবের নেতৃত্ব দিয়ে থাকে। প্রথমবারের মত বাংলাদেশ এবার নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ পেয়েছে। মাইগ্রান্ট আরিরাং মাল্টিকালচারাল ফেস্টিভাল নামের এই উৎসব দক্ষিণ কোরিয়ার খিয়ংসাং প্রদেশের ছাংউওনে আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে ১ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে।

১২তম এই অভিবাসী উৎসবে থাকবে ১৩ টি দেশের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। পুরো কোরিয়া থেকে বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা এই উৎসব উপভোগ করতে যান। বিভিন্ন দেশের খাবার, ঐতিহ্যবাহী এবং সংস্কৃতির প্রদর্শনীসহ নানা আয়োজন উপভোগের সুযোগ পান অভিবাসীরা। ২০১৬ সালে প্রায় দেড় লাখ অভিবাসী এই উৎসবে যোগ দেন। এবার ২লাখ ২০হাজার অভিবাসী যোগ দিবেন বলে আশা প্রকাশ করেছে আয়োজকরা।

উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর। এছাড়া উৎসবে যোগ দিতে বাংলাদেশ থেকে জনপ্রিয় ব্যান্ড লালনের সদস্যবৃন্দ, বাংলাদেশের প্রখ্যাত বাউল শিল্পী আব্দুল কুদ্দুস বয়াতি,নৃত্যশিল্পী সাদিয়া ইসলাম মৌসহ একটি বড় সাংস্কৃতিক দল কোরিয়া আসবেন।

উৎসবের তিনদিনই থাকছে বাংলাদেশের সরব উপস্থিতি। উদ্বোধনী দিনে দুপুর দেড়টায় উৎসবের স্বাগতিক দেশ হিসেবে থাকছে বাংলাদেশের একক পরিবেশনা। সেদিন সন্ধ্যা ৭টায় উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে।

উৎসবের দ্বিতীয় দিন শনিবার সকাল ১১টায় কোরিয়াস্থ বাংলাদেশ বাংলাদেশ সাস্কৃতিক গোষ্ঠি এবং দুপুর ১টায় বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পীগণের পরিবেশনা উপভোগ করবে হাজার হাজার অভিবাসী।

উৎসবের শেষদিন রবিবার সকাল ১০টা থেকে শুরু হবে বাংলাদেশীদের পরিবেশনায় আরিরাং উৎসব। বিকাল ৪টায় শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘লালন’ এর পরিবেশনায় থাকবে এশিয়ান পপ গানের অনুষ্ঠান।

উৎসবে বিভিন্ন পর্বে রয়েছে বিভিন্ন ধরণের পুরস্কার। বাংলাদেশী ঐতিহ্যবাহী পোষাক পরিধান করলেই রয়েছে সৌজন্য উপহার। গিয়ংনাম বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন কোরিয়া’র সভাপতি পারভেজ হাসান জানান আমরা উৎসবে বাংলাদেশের বিভিন্ন খেলার ব্যবস্থা করেছি। কেরাম, বালিশ নিক্ষেপ, হাড়িভাংগাসহ জনপ্রিয় খেলা ছাড়াও বাংলাদেশীয় ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরিধান করে ফ্যাশন শো এবং বাংলাদেশী গাণের প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ রয়েছে। তিনি সবাইকে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী পোষাক পরিধান করে উৎসবে যোগদানের জন্য অনুরোধ জানান। তিনি ৪০জনের বেশি প্রবাসী উৎসবে যোগ দিলে বাসের ব্যবস্থা আছে বলে জানান। বাসের জন্য যোগাযোগ ০১০-৬২৪১-৭৭৮৫ (পারভেজ হাসান)

গিয়ংনাম মাইগ্রেন্ট লেবার এন্ড ওয়েলফেয়ার সেন্টারের আয়োজনে এই উৎসবে সহযোগিতা করছে বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, সিউলস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এবং গিয়ংনাম বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন কোরিয়া।

Immigrant Festival

উৎসবের স্থানঃ ছাংউওন কালচারাল পার্ক (কেবিএস এর পাশে)

ঠিকানাঃ 경남 창원시 의창구 중앙대로 300 (Changwon City uichang-gu changwon Jong an dae-ro 300)

যে কোন প্রকার তথ্য ও অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য যোগাযোগ করুন :

ফোন: ০৫৫২৭৭৮৭৭৯/ ০১০৬২৪১৭৭৮৫/ ০১০৯১৯৯৪৩৬১

ইমেইল: mamf@hanmail.net/http://www.migrantsarirang.co.kr

sentbe-top