উত্তর কোরিয়ার ওপর ফের জাপানের নিষেধাজ্ঞা

north-korea-flagনতুন করে উত্তর কোরিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে জাপান। পিয়ংইয়ংয়ের ক্রমাগত পারমাণবিক অস্ত্র এবং ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার ঘটনায় দেশটির ওপর চাপ প্রয়োগ করতেই এমন নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে। খবর বিবিসি।

জাপানের মন্ত্রীসভার প্রধান সচিব ইয়োসিহদে সুগা বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার ১৯ ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের সম্পদ জব্দ করা হবে। রাশিয়া এবং চীনের দুই শতাধিক ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানকেও টার্গেট করা হয়েছে। কালো তালিকাভূক্ত ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বিভিন্ন ব্যাংক, কয়লা এবং খনিজ ব্যবসায়ী, পরিবহন সংস্থাও রয়েছে।

শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার আগেই উত্তর কোরিয়ার ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আনল জাপান।

সেপ্টেমর থেকে জাপানের সাগরে বেশ কয়েকবার আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া। জাপানের মূল ভূখণ্ডের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাকে হুমকি হিসেবে দেখা হচ্ছে।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে ইয়োসিহদে সুগা বলেন, উত্তর কোরিয়া আমাদের অর্থনৈতিক অঞ্চলে আইসিবিএম ব্যালিস্টিক মিসাইল উৎক্ষেপণ করেছে এবং তারা ক্রমাগত উত্তেজক বিবৃতি দিয়ে যাচ্ছে।

পিয়ংইয়ংকে চাপে রাখতে জাপান আরও বেশি সম্পত্তি জব্দ করতে পারে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। ইতোমধ্যেই উত্তর কোরিয়ার ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রেখেছে জাপান। দেশটির ওপর ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে।

এর আগে জাতিসংঘ ছাড়াও দক্ষিণ কোরিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রও উত্তর কোরিয়ার ওপর এক তরফা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু এবং ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি কমিয়ে আনতে এবং কোরীয় দ্বীপে স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে দেশটির দেশটির প্রতি শান্তিপূর্ণ কোনো পদক্ষেপ গ্রহণের পরিকল্পণা রয়েছে।