sentbe-top

সুচির কাছ থেকে ক্ষমতা ছিনিয়ে নেয়ার হুমকি মিয়ানমার সেনাপ্রধানের

mayanmar-army-chiefমিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সুচির সঙ্গে এক বৈঠকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিপরীতমুখী অবস্থান নেয়ার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন দেশটির সেনাবাহিনীর প্রধান মিন অং হ্লেইং। ওই বৈঠকের বেশ কয়েকটি সূত্রের বরাত দিয়ে ব্যাংকক পোস্ট এক প্রতিবেদনে বলেছে, ক্ষমতাসীন সুচির কাছ থেকে ক্ষমতা ছিনিয়ে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন সেনাবাহিনীর এ প্রধান।

চলতি মাসের শুরুর দিকে সুচির পাশাপাশি দেশটির প্রেসিডেন্ট, ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সেনাবাহিনীর উপ-প্রধানের সঙ্গে বৈঠক করেন মিন অং হ্লেইং। তবে সেনাপ্রধানের অভ্যুত্থানের হুমকির ওই খবর ব্যাংকক পোস্টে প্রকাশের পর মিয়ানমারের প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের মহাপরিচালক জেনারেল ইউ জ্য হতেই বলেছেন, বৈঠকে অভ্যুত্থানের হুমকি দেননি মিন অং হ্লেইং।

গত শনিবার (২৩ জুন, ২০১৮) ব্যাংকক পোস্ট ‘মিয়ানমারে সম্ভাব্য সেনা অভ্যুত্থান এড়ালো জাতিসংঘ প্রতিনিধি’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। ল্যারি জ্যাগানের লেখা ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চির সঙ্গে বৈঠকে রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ইস্যুতে সরকারের কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান সেনাপ্রধান মিন অং হ্লেইং। এমনকি তিনি সেনা অভ্যুত্থানেরও হুমকি দেন।

তবে এটা পরিষ্কার নয় যে, তিনি পুরো দেশ পরিচালনার কথা বলেছেন নাকি শুধুমাত্র রাখাইন প্রদেশ। সংবিধানে বলা আছে, সেনাপ্রধান যদি মনে করেন দেশের নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়েছে, তাহলে তিনি পুরো দেশের অথবা প্রদেশের প্রশাসনিক ক্ষমতা সেনানিয়ন্ত্রণে নিতে পারেন। ২০১২ সালের শেষের দিকে মিয়ানমার সেনাবাহিনী রাখাইনের ক্ষমতা দখল করে; ওই সময় দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি ছিল। আর এতে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট থেইন সেইনের সম্মতি ছিল।

সৌজন্যে- জাগো নিউজ

sentbe-top