sentbe-top

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশিরাও মেতেছে হালাল টার্কি ভোজে

tarki-vojযুক্তরাষ্ট্রে ‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’তে ধনী-গরীব সবাই মেতে ওঠেন ঐতিহ্যবাহী টার্কি ভোজে। পারিবারিকভাবে প্রতিটি ঘরেই চলছে টার্কির মধ্যাহ্ন আর নৈশভোজ। মার্কিনীদের মতো প্রবাসী বাংলাদেশিরাও মেতে ওঠেন এ উৎসবে। যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের বিভিন্ন শহরে হালাল টার্কিতে ‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’র পার্টি আর নৈশভোজে মেতে ওঠেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক, নিউ জার্সি, পেনসিলভানিয়া, কানেকটিকাট, ম্যাসাচুসেটস, ক্যালিফোর্নিয়া, ওয়াশিংটন ডিসি, ভার্জিনিয়া, ম্যারিল্যান্ড, ফ্লোরিডা, টেক্সাস, জর্জিয়া, ওহাইও, নর্থ ক্যারোলিনা, সাউথ ক্যারোলিনাসহ বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের বড় বড় শহরগুলোতে বাংলাদেশিরা ‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’ পার্টির আয়োজন করেছেন। সেখানে টার্কি নৈশভোজসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলছে মধ্যরাত পর্যন্ত। ওইসব এলাকায় মুসলমান মালিকানাধীন মুদি দোকানগুলোতে প্রচুর পরিমাণে হালাল টার্কি বিক্রি হয়েছে বলে জানা খবর পাওয়া গেছে।

আজ বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রে পালিত হচ্ছে কৃতজ্ঞতাজ্ঞাপন দিবস বা থ্যাঙ্কস গিভিং ডে। ‘থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’র অর্থ কৃতজ্ঞতাজ্ঞাপন বা ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন দিবস। প্রতিবছর নভেম্বর মাসের চতুর্থ বা শেষ বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রে সরকারিভাবে ‘থ্যাংকস গিভিং ডে’ উদযাপন করা হয়। দিসবটিতে ধনী-গরিব সবাই মেতে ওঠেন ঐতিহ্যবাহী টার্কি ভোজে। পারিবারিকভাবে প্রতিটি ঘরেই চলে টার্কি লাঞ্চ আর ডিনার।

১৬২১ সালের এক হেমন্তে আমেরিকার আদি জনগোষ্ঠীর সঙ্গে প্রধানত ইংল্যান্ড থেকে আগত যাজকদের এক শুভক্ষণে পরস্পরের মধ্যে উৎপাদিত শস্য এবং পণ্য বিনিময়ের মধ্যদিয়ে ‘থ্যাংকস গিভিং’ উৎসবের সূত্রপাত হয়।

এর ধারাবাহিকতায় ১৮৬৩ সালে প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন সেদিনের সেই বন্ধুত্ব এবং শান্তির অমিয়বাণী আমেরিকাবাসীর অন্তরে ধারণ করতে রাষ্ট্রীয়ভাবে দিনটিকে ‘থ্যাংকস গিভিং হলি ড’ হিসেবে ঘোষণা করেন।

সেই থেকে প্রতিবছর বন্ধুত্ব ও সংহতি প্রকাশের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটকে স্মরণীয় বরণীয় করে তুলতে নানা আয়োজনে মেতে উঠে সমগ্র যুক্তরাষ্ট্র। দিনটি আমেরিকায় সরকারি ছুটির দিন। একই আমেজে পার্শ্ববর্তী দেশ কানাডায় এ দিনটি পালন করা হয় প্রতিবছর অক্টোবর মাসের দ্বিতীয় সোমবার।

সৌজন্যে- জাগো নিউজ

sentbe-top