cosmetics-ad

ব্রিটেনের প্রধান গির্জায় কুরআন তেলাওয়াত!

pagoda

‘রয়াল ক্যাথিড্রাল অ্যাবে’ ব্রিটেনের প্রধান উপাসনালয় বা গির্জা। এ গির্জায় ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ ও কুটনীতিকের স্মরণসভায় পবিত্র কুরআনুল কারিম তেলাওয়াত করেছেন বসনিয়া অ্যান্ড হার্জেগোভিনার প্রধান মুফতি হুসাইন কাভাজোভিক।

ব্রিটেনের এ প্রধান গির্জাটি ৯৬০ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয়। ঐতিহাসিক এ গির্জায় গত ১০ সেপ্টেম্বর সাবেক কূটনীতিক ও রাজনীতিবিদ প্যাডি অ্যাশডন-এর স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে ওই অনুষ্ঠানে বসনিয়া অ্যান্ড হার্জেগোভিনার প্রধান মুফতি হুসাইন কাভাজোভিক কুরআনুল কারিমের (সুরা নাহলে ৯০-৯৭) ৮টি আয়াত তেলাওয়াত করেন। কুরআন তেলাওয়াতের আগে সেখানে বাইবেলও পাঠ করা হয়।

সাবেক কূটনীতিক ও রাজনীতিবিদ প্যাডি অ্যাশডন ‘দ্য লিবারেল ডেমোক্রেটস’-এর নেতা ছিলেন। তিনি ২০১৮ সালের ২২ ডিসেম্বর মারা যান। কর্মজীবনে প্যাডি অ্যাশডন বসনিয়ার মুসলিমদের পক্ষে জোরালো ভূমিকা রেখেছিলেন।

সার্ব বাহিনী যখন মুসলিম নিধনে ওঠে পড়ে, তখন এ কুটনীতিবিদ মুসলিম নিধনের বিপক্ষে জনমত গঠনে বিশেষ অবদান রাখেন। মুসলিমদের জন্য তার কর্মনীতি ও তার ভালোবাসার প্রতি সম্মান জানাতেই তার স্মরণসভায় কুরআন তেলাওয়াতের ব্যবস্থা রাখা হয়।

এ স্মরণসভায় মুসলিম আইনজীবী ইয়াসির হুসাইন বলেন, ‘মুসলিমদের জন্য প্যাডি অ্যাশডনের কর্মতৎপরতা ও কল্যাণকর প্রচেষ্টা দেখে মনে হতো তিনি মুসলিম হয়ে গেছেন।

তার স্মরণসভায় কুরআন তেলাওয়াত প্রসঙ্গে এ আইনজীবী আরও বলেন, ‘তার স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে কুরআন তেলাওয়াত অভিনব। সাধারণত কোনো অমুসলিমের স্মরণে বা তার স্মৃতিসৌধে ইসলামি প্রার্থনা ও কুরআন তেলাওয়াত হয় না। এটি এক বিরল ঘটনা।’

রয়াল ক্যাথিড্রল অ্যাবে-তে কুরআন তেলাওয়াতের ঘটনায় খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অনেকেই এ ঘটনার সমালোচনা করেছেন।

তবে রয়াল ক্যাথিড্রল অ্যাবে গির্জা কর্তৃপক্ষ মিশ্র প্রতিক্রিয়া ও সমালোচনার জবাব দিয়েছেন। তারা জানিয়েছেন, এ গির্জায় কুরআন তেলাওয়াতের ঘটনা এটিই প্রথম নয়। বরং এর আগেও এখানে অনেক আন্তধর্মীয় আলোচনা সভা হয়েছে। আর তাতে মুসলিম, হিন্দুসহ অন্যান্য ধমাবলম্বীদের গ্রন্থ পাঠ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, ৯৬০ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হওয়া এ ঐতিহাসিক গির্জায় ব্রিটেনের ১৭ জন রাজাকে সমাহিত করা হয়েছে।