cosmetics-ad

ঠাকুরগাঁও সীমান্তে বাংলাদেশীকে ‍গুলি করলো বিএসএফ

bsf

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বেউরঝাড়ী সীমান্তের ওপারের ভারতীয় বড়বিল্লাহ ক্যাম্পের বিএসএফের গুলিতে দুলাল হোসেন (২৮) নামের এক বাংলাদেশী আহত হয়ে কোনরকমে এপার পালিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ রোববার ভোর রাতে।

এলাকাবাসী ও বিজিবি’র সূত্রে জানা গেছে, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার চড়ইগতি গ্রামের সরবাতু মোহাম্মদের ছেলে দুলাল হোসেনসহ কয়েকজন মিলে আজ রোববার ভোর রাতে বেউরঝাড়ী সীমান্তের ৩৮৯/ ৫ সাব পিলারের ১০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে গরু কিনতে যান। ওইসময় ভারতীয় উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপুকুর থানার বড়বিল্লাহ ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশী ব্যাবসায়ীদের লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে।
এতে বাংলাদেশী গরু ব্যবসায়ী দুলাল হোসেনের ডান হাতের বাহুতে গুলিবৃদ্ধ হয়ে কোন রকমে এপারে পালিয়ে আসতে সক্ষম হন। পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য রংপুরের উদ্দেশ্যে নিয়ে যায়।

এব্যাপারে ঠাকুরগাঁও-৫০ বিজিবি ব্যাটেলিয়ানের নাগরভিটা কোম্পানী সদর দপ্তর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার আব্দুস সালাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আজ দুপুরে সীমান্তের জিরো পয়েন্টে উভয় দেশের কোম্পানীর কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠকে গুলি বর্ষণের বিষয়টি বিএসএফ এর পক্ষ থেকে অস্বীকার করেছে। অপরদিকে এলাকাবাসী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

উল্লেখ্য যে, গত শনিবার ভোররাতে পাশ্ববর্তী রত্নাই সীমান্তের ওপারের ভারতীয় অংশের ইসলামপুর থানার সোনামতি ক্যাম্পের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশী গরু ব্যবসায়ী শাহিন আলমকে (২৮) যুবককে ধরে নিয়ে গেছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার রত্নাই কাশিবাড়ী গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে শাহিন আলমসহ কয়েকজন গরু ব্যবসায়ী মিলে গত শনিবার ভোররাতে রত্নাই সীমান্তের ৩৮২/২ সাব পিলারের ১০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে গরু কিনতে যান। ওই সময় ভারতীয় উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর থানার সোনামতি ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যদের নজরে পড়লে তারা ধাওয়া করে শাহিনকে আটক করে এবং শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে ওপারের ক্যাম্পে নিয়ে যায়।

রত্নাই ক্যাম্পের বিজিবি’র পক্ষ থেকে আটককৃত বাংলাদেশী ব্যববসায়ীকে ফেরত চেয়ে বিএসএফকে পত্র দেওয়া হলে রোববার দুপুর ১টায় রত্নাই সীমান্তের জিরো পয়েন্টে উভয় দেশের কোম্পানীর কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। পতাকা বৈঠকে আটককৃত শাহিন আলমকে ভারতীয় ইসলামপুর থানা পুলিশের নিকট সোপর্দ করা হয়েছে বলে বিএসএফ জানিয়েছেন।