cosmetics-ad

ইতালিতে করোনায় ৩ বাংলাদেশি আক্রান্ত

corona-italy

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে ইতালিতে ৩ বাংলাদেশি আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। দেশটির উত্তরাঞ্চলে ওই বাংলাদেশিরা করোনায় আক্রান্ত হন। তিনজনের মধ্যে একজন কুমিল্লা, মাদারীপুর এবং অপরজনের দেশের বাড়ি মানিকগঞ্জ। তারা সবাই হাসপাতালে রয়েছে।

এদিকে মানিকগঞ্জের ওই ব্যক্তি সাতদিন ধরে কোয়ারেন্টাইনে আছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আক্রান্ত মানিকগঞ্জের ওই ব্যক্তির এক বন্ধু রোমের ব্যবসায়ী। তিনি জানান, হঠাৎ সর্দি, কাশি হয়। এরপর তাকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। এখন তাকে কোয়ারেন্টাইনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তিনি দশ বছর ধরে ইতালিতে আছেন।

আরেকজন উত্তর ইতালির বেরগামো থাকেন। তার দেশের বাড়ি কুমিল্লা। তার এক প্রতিবেশী জানায়, সে আগের তুলনায় এখন অনেক সুস্থ। অপরজন মাদারীপুরের। তিনি একটু আক্রান্ত বেশি হওয়া তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। বয়স আনুমানিক ৩৪ হবে। হঠাৎ, ঠান্ডা জ্বর থেকে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে।

উল্লেখ্য, করোনার আঘাতের কারণে প্রধানমন্ত্রী কোন্তি জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন। ফলে গোটা ইতালি এখন ফাঁকা। সরকার নতুন করে ঘোষণা দিয়ে সকল প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে। সরকারের অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান ছাড়া কোনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা নেই। হাতেগোনা কয়েকটি ইন্ডাস্ট্রি খোলা রয়েছে শর্ত সাপেক্ষে।

চীনে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে মাত্র চারজন কভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছেন, মারা গেছেন একজন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ১৭০ জন। তবে করোনার তাণ্ডব চলছে ইউরোপের দেশগুলোতে। ইতালিতে একদিনে মারা গেছেন আরও ১৮৯ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৬ জন, আক্রান্ত ১৫ হাজার ১১৩ জন। স্পেনে একদিনে নতুন করে ৮৬৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন, মারা গেছেন ৩১ জন।

ফ্রান্সে একদিনে ৫৯৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, প্রাণ হারিয়েছেন ১৩ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট প্রাণহানির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬১ জন। এছাড়া, ইরানে গত ২৪ ঘণ্টায় নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৭৫ জন, মারা গেছেন ৭৫ জন। দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন করোনা রোগী ২২৪ জন, প্রাণহানি সাতজনের। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ৯৭৯ এবং মৃত্যু ৬৭ জনের।

যুক্তরাষ্ট্রে আরও ৪২৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, মারা গেছেন তিনজন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৭২৫ ও প্রাণহানি ৪১ জনের।