cosmetics-ad

আওয়ামী লীগের শতাধিক নেতা-কর্মীর বিএনপিতে যোগদান

awamee-bnp

রাজশাহীতে আওয়ামী লীগের শতাধিক নেতাকর্মী বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন। এটি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের নির্বাচনী এলাকা বলে জানা গেছে।

সোমবার বিকেলে উপজেলার মাড়িয়া ঈদগাহ মাঠে বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সাঈদ চাঁদের হাতে ফুল দিয়ে বিএনপিতে যোগ দেন তারা।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের ওপর ক্ষোভ থেকেই বিএনপিতে যোগ দিলেন ওই শতাধিক নেতাকর্মী। উপজেলার নিমপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল কুদ্দুস পলাশ ও সাবেক উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান তাহমিনা বেগমের নেতৃত্বে তারা বিএনপিতে যোগদেন।

এদের মধ্যে তহমিনা বেগম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে জয়লাভ করেন। তার স্বামী উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি ছিলেন। দলের কিছু নেতার সঙ্গে মনোমালিন্য হওয়ায় বিএনপি ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগদেন তিনি। তার দাবি, ভুল ভেঙ্গে যাওয়ায় পুনরায় তিনি বিএনপিতে ফিরে এলেন।

অন্যদিকে, আবদুল কুদ্দুস পলাশ জানান, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েছেন। তিনি দুর্নীতির সঙ্গে থাকতে চান না। চেষ্টা করেও দিন দলের নেতাকর্মীদের দুর্নীতি ঠেকাতে পারেননি তিনি। ফলে বাধ্য হয়েই কর্মী-সমর্থকদের বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন। আমি আওয়ামী লীগের চেয়ে বিএনপির আদর্শ ভালো মনে হওয়ায় তিনি ওই সিদ্ধান্ত নেন।

ওই যোগদান অনুষ্ঠানে বিএনপির নেতা আবু সাইদ চাঁদ বলেন, পলাশ চেয়ারম্যানের মত আওয়ামী লীগের আরো বড় বড় নেতা এখন বিএনপিতে যোগদানের জন্য উদগ্রীব হয়ে আছেন। যে কোন সময় আওয়ামী লীগের আরো শতাধিক নেতাকর্মী বিএনপিতে যোগদান দেবেন।

আবু সাইদ চাদ ছাড়াও ওই সময় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এস এম ইউশা সরকার ভোলা, সহ-সভাপতি আকবর আলী সরকার, ইউসুফপুর ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম রবিন, সদর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, পৌর বিএনপির সভাপতি কায়েম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম বিকুল প্রমুখ।

এদিকে, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের নির্বাচনী এলাকায় বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নাশকতার বেশ কয়েকটি মামরা অন্যতম আসামি বিএনপি নেতা আবু সাইদ চাঁদের হাতে ফুল দিয়ে বিএনপিতে যোগদান করায় এলাকায় তোলপাড়া শুরু হয়েছে।

এর আগে গত ২ জুলাই শাহরিয়ার আলমের হাতে ফুল নিয়ে আওয়ামী লীগে যোগদেন বেশ কয়েকটি নাশকতার মামলার আসামি বিএনপি নেতা মুকলেছুর রহমান বাচ্চু ও জামায়াত নেতা হুমায়ন কবিরের নেতৃত্বে ৬০ জন বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মী। এর পর গত শনিবার বিকেলে আরো ১৫ বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মী আওয়ামী লীগে যোগ দেন।