cosmetics-ad

প্রেম যখন আটকে গেল কাঁটাতারে

kata-tar

সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়া উপেক্ষা করে প্রেমে পড়েন কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার এক কিশোরী (১৪) ও ভারতের কোচবিহারের এক তরুণ (২৫)। পণ করেন দেশের ভিন্নতার পাশাপাশি ধর্মের ভিন্নতাকে পাশ কাটিয়ে একসঙ্গে পথ চলার। কিশোরীকে নিজের দেশে নিয়ে যেতে লুকিয়ে কাঁটাতার পার হয়ে বাংলাদেশে আসেন তরুণটি। কিশোরীকে সীমান্তের ওপারে পাঠিয়ে নিজে যাওয়ার পথে আটকা পড়ে যান তিনি। বিষয়টি চলে যায় দুই দেশের সীমান্ত রক্ষাকারী বাহিনী বিজিবি ও বিএসএফের কাছে। সেখানেই ভাগ্য নির্ধারিত হয় তাদের।

স্থানীয় লোকজন ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কিশোরী ও তরুণের বাড়ি সীমান্তের শূন্যরেখার কাছাকাছি। ফোনে কথা হয়। দূর থেকে দেখাও হয়। একসময় সিদ্ধান্ত নেন বিয়ে করে একসঙ্গে থাকার। কথামতো গত সোমবার গভীর রাতে ছেলেটি বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেন। মেয়েটি আগে থেকেই সেখানে ছিল। মেয়েটিকে নাগেশ্বরী সীমান্ত দিয়ে পার করে দেন তিনি। এরপর নিজে পার হতে গিয়ে মেয়ের পরিবারের লোকজন ও গ্রামবাসীর হাতে ধরা পড়েন তরুণটি। এ নিয়ে সীমান্তবর্তী দুই গ্রামের মানুষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

সমস্যার সমাধানে গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে বিজিবি ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) মধ্যে কয়েক দফা চিঠি চালাচালি হয়। এরপর বিজিবির পক্ষে রামখানা বিজিবি ক্যাম্পের ইনচার্জ নায়েক সুবেদার আবদুস সোবাহান ও জায়গীর বালাবাড়ী বিএসএফ ক্যাম্পের ইনচার্জ রাকেশ সিং বৈঠকে বসেন।

কয়েক দফা বৈঠকের পর গতকাল ছয়টার দিকে মেয়েটিকে বিজিবির হাতে ও ছেলেটিকে বিএসএফের হাতে তুলে দেওয়া হয় বলে নিশ্চিত করেছেন কুড়িগ্রামের রামখানা বিজিবি ক্যাম্পের ইনচার্জ নায়েক সুবেদার আবদুস সোবাহান।