sentbe-top

টেস্ট খেলতে আগ্রহী নয় সাকিব-মুস্তাফিজরা : পাপন

papon
ফাইল ছবি

বেশ কিছু সিনিয়র ক্রিকেটার টেস্ট খেলতে আগ্রহী নন বলে জানিয়েছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমানদের কথা উল্লেখ করার সঙ্গে তারা কেন খেলতে আগ্রহী নন, সেটা বিস্তারিত ব্যাখ্যা না করে তিনি বলেছেন, বিশ্বব্যাপী ক্রিকেটার, বোর্ড ও ব্রডকাস্টারদের টেস্টের ব্যাপারে অনাগ্রহের সঙ্গে যুক্ত এটি।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পর মুশফিকুর রহিমকে সরিয়ে সাকিবকে টেস্টে অধিনায়কত্ব দিয়েছে বিসিবি। সেই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বিশ্রামে ছিলেন সাকিব। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে খেলতে পারেননি আঙুলের চোটের কারণে। আর মুস্তাফিজ চোটের কারণে খেলতে পারেননি ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্ট সিরিজ।

“এমনকি আইসিসিতেও আমি ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া ছাড়া অন্যান্য দেশগুলোকে টেস্ট খেলতে আগ্রহী দেখি না। বোর্ড হিসেবে তারা টেস্টে আগ্রহী নয়। ব্রডকাস্টাররাও আগ্রহী নয়। যেখানে কোনও দর্শক নেই, সেখানে তাদের কোনও আগ্রহ নেই”, বলেছেন নাজমুল।

“আমাদের দেশে আমরা দেখছি, বেশ কিছু সিনিয়র ক্রিকেটার টেস্ট খেলতে চায় না। সাকিব টেস্ট খেলতে চায় না। মুস্তাফিজও খেলতে চায় না, যদিও সে এটা উল্লেখ করেনি। সে এড়িয়ে চলতে চায় এটা। হয়তো সে চোটপ্রবণ বলে ভাবে, টেস্ট খেললে যদি চোটে পড়ে। হয়তো তার মনে হয়, টেস্ট বেশ শক্ত, যেমন ধরুন রুবেলের (হোসেন) ক্ষেত্রে। তরুণদের নিয়ে আসা একমাত্র উপায়।”

টেস্টের জন্য স্পেশালিস্ট ক্রিকেটার প্রয়োজন বলে মনে করছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট, “টেস্টের জন্য নতুন সেট-আপ লাগবে আমাদের। আমি গত চার বছর ধরেই এটা বলছি। সবারই স্পেশালিস্ট টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট ক্রিকেটার আছে। আমাদের শুধু টেস্টের জন্য মুমিনুল (হক) আছে। আমাদের এমন পাঁচ-ছয়জনকে গড়ে তুলতে হবে।”

এখনই সিনিয়র ক্রিকেটারদের টেস্ট থেকে বাদ দেওয়া যাবে না বলে নাজমুল জানিয়েছেন, তাদের অবসরের পর যাতে নতুনরা তৈরী হয়ে আসতে পারেন, সে ব্যবস্থা নিতে হবে, “আমাদের তামিম (ইকবাল) ও আরেকজন ওপেনার আছে। তিনজন পেস বোলারের সঙ্গে একজন স্পিনার আছে। আপনি সাকিবকে বদলাতে পারেন না, মুশফিকুর (রহিম), মাহমুদউল্লাহকে বদলাতে পারেন না। মুমিনুল তিনে খেলে। একটা সিরিজে খারাপ খেললেই তাকে বাদ দিতে পারেন না। আর, সাত নম্বরে আমাদের মোসাদ্দেক (হোসেন), সাব্বির (রহমান), (মেহেদি হাসান) মিরাজরা আছে।

“কোনও একজন সিনিয়রকে বাদ দিলেই অনেক কথা হবে। যখন তামিম, সাকিব, মুশফিকুর, মাহমুদউল্লাহ থাকবে না, তখনকার জন্য নতুন ক্রিকেটার প্রস্তুত করতে হবে।”

sentbe-top